সৌদি স্থাপনায় হুতি হামলা বাংলাদেশের নিন্দা

মানবজমিন প্রকাশিত: ১৮ সেপ্টেম্বর ২০১৯, ০০:০০

সৌদি আরবের একটি গ্যাস কারখানা ও দু’টি আরামকো অয়েল প্ল্যান্টে হুতি বিদ্রোহীদের ড্রোন হামলার তীব্র নিন্দা জানিয়েছে বাংলাদেশ। শুক্রবারের ওই হামলার ঘটনায় সোমবার পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের এক বিবৃতিতে বলা হয়, সৌদি আরবের গুরুত্বপূর্ণ স্থাপনায় বারবার হুতিদের সন্ত্রাসী হামলায় বাংলাদেশ উদ্বেগ প্রকাশ করছে। বিনা উসকানিতে হুতিদের এ ধরনের কর্মকাণ্ড এতদ্বঞ্চলের পারিপার্শ্বিক পরিস্থিতি বাধাগ্রস্ত এবং শান্তি ও নিরাপত্তার ভারসাম্যকে ক্ষতিগ্রস্ত করছে। বিবৃতিতে আরো বলা হয়, বাংলাদেশ সৌদি আরবের শান্তি ও স্থিতিশীলতা রক্ষার সব প্রচেষ্টার প্রতি সমর্থন করে যাবে। উল্লেখ্য, হুতি হামলায় ক্ষতিগ্রস্ত সৌদি আরবের দুটি তেলক্ষেত্রই রাষ্ট্রীয় মালিকানাধীন কোম্পানি আরামকো’র। ড্রোন হামলা হয়েছে আরামকো’র সবচেয়ে বড় তেল প্রক্রিয়াকরণ কেন্দ্র আবকাইকে এবং অন্যটি আঘাত করেছে দেশটির পশ্চিমে অবস্থিত খুরাইস তেলক্ষেত্রে। হামলা পরবর্তী বিবৃতিতে ইয়েমেনের ইরানপন্থী বিদ্রোহী সংগঠন হুতি তার দায় স্বীকার করেছে এবং আরো হামলার হুমকি দিয়েছে। আবকাইক তেলক্ষেত্রটি সৌদি আরবের ইস্টার্ন প্রোভিন্স দাম্মামের নিকটবর্তী। সেখানে ড্রোন হামলার পর বিশাল অগ্নিশিখা আকাশে ছড়িয়ে পড়ে। ধোঁয়ায় কালো হয়ে যায় চারদিক। অগ্নিযোদ্ধাদের চেষ্টায় দু’টি তেলক্ষেত্রের আগুন নিয়ন্ত্রণে এলেও এ ঘটনায় সৌদি আরব তথা বিশ্ববাজারে তেলের সরবরাহ সমায়িক সংকটে পড়ে যায়। স্থানীয় সূত্রে প্রাপ্ত তথ্যমতে, গত কয়েক মাসে সৌদি আরবে হামলার মাত্রা বাড়িয়ে দিয়েছে হুতিরা। পূর্বের তুলনায় আরো আধুনিক মিসাইল ও ড্রোন হামলা পরিচালনা করছে তারা। এর আগেও দেশটির বেশ কয়েকটি গুরুত্বপূর্ণ তেলক্ষেত্রে হামলা চালিয়েছে গোষ্ঠীটি। ইয়েমেনে সৌদি জোটের বিমান হামলার প্রতিবাদেই গোষ্ঠিটি প্রতিশোধমূলক হামলাগুলো পরিচালনা করছে। এতে ইরানের সরাসরি ইন্ধন রয়েছে বলে যুক্তরাষ্ট্রসহ বিভিন্ন দেশ অভিযোগ করছে।
সম্পূর্ণ আর্টিকেলটি পড়ুন

সংবাদ সূত্র

News

The Largest News Aggregator
in Bengali Language

Email: [email protected]

Follow us