কুইক লিঙ্ক : মুজিব বর্ষ | করোনা ম্যাপ | করোনা ভাইরাসের প্রাদুর্ভাব

চালের পর্যাপ্ত মজুত তবু দাম বাড়ছে

ইত্তেফাক প্রকাশিত: ১১ আগস্ট ২০২০, ০০:৪৩

বর্তমানে দেশে যে পরিমাণ চাল মজুত আছে তা দিয়ে আগামী নভেম্বর পর্যন্ত চাহিদা মিটিয়েও চাল উদ্বৃত্ত থাকবে। তাই করোনা মহামারি ও চলমান বন্যার ক্ষয়ক্ষতির পরও দেশে খাদ্যঘাটতির কোনো আশঙ্কা নেই।

গত রবিবার ‘কোভিড-১৯ পরিস্থিতিতে খাদ্যনিরাপত্তা :বাংলাদেশ কি চাল ঘাটতির মুখোমুখি হতে যাচ্ছে?’ শীর্ষক এক অনলাইন সেমিনারে বাংলাদেশ ধান গবেষণা ইনস্টিটিউট (ব্রি) এর গবেষণায় চাল উদ্বৃত্তের এ তথ্য তুলে ধরা হয়। ব্রি এই সেমিনারের আয়োজন করে।

তবে চাল উদ্বৃত্ত থাকার কথা বলা হলেও গত কিছু দিন ধরেই দেশে চালের বাজার অস্থির। সরকারের বিপণন সংস্থা ট্রেডিং করপোরেশন অব বাংলাদেশের (টিসিবি) হিসেবে গত এক বছরের ব্যবধানে স্বল্প আয়ের মানুষের মোটা চাল ইরি/স্বর্ণার দাম বেড়েছে ১৮ শতাংশের বেশি। আর সরু চাল নাজিরশাইল/মিনিকেটের দাম বেড়েছে ৮ দশমিক ৭৪ শতাংশ। রবিবার রাজধানীর বাজারে প্রতি কেজি মোটা চাল ইরি/স্বর্ণা বিক্রি হয় ৪০ থেকে ৪৫ টাকায়। যা গত বছর এই সময় ছিল ৩৪ থেকে ৩৮ টাকা। অন্যদিকে সরু চাল বিক্রি হয় ৫০ থেকে ৬৪ টাকায়। যা গত বছর ছিল ৪৭ থেকে ৫৬। মাঝারি মানের চাল পাইজাম/লতা বিক্রি হচ্ছে ৪৪ থেকে ৫০ টাকায়।

সম্পূর্ণ আর্টিকেলটি পড়ুন

প্রতিদিন ৩৫০০+ সংবাদ পড়ুন প্রিয়-তে

আরও