কুইক লিঙ্ক : মুজিব বর্ষ | করোনা ম্যাপ | করোনা ভাইরাসের প্রাদুর্ভাব

দুই নক্ষত্রের 'রহস্যময়' মৃত্যু, যুক্ত সাজিদ নাদিয়াদওয়ালার নাম

কালের কণ্ঠ প্রকাশিত: ৩০ জুন ২০২০, ১৩:৩৭

নব্বইয়ের দশকে বলিউডে পরিবর্তনের একটি হাওয়া বয়ে গিয়েছিল। এই সময় নতুন প্রতিভাবান মুখগুলো মানুষের পছন্দ হয়ে উঠছিল। এই মুখগুলোর মধ্যে একটি ছিল দিব্যা ভারতী। নব্বইয়ের দশকের দিব্যা ভারতীর 'সাত সমুদ্র পার...' গান এখনও মানুষের মনে রয়েছে। মনে রয়েছে দিওয়ানা ছবির প্রত্যেকটি গানের কথা। দিব্যা ভারতীর সাথে অভিনয়ের মাধ্যমে বলিউডে সুযোগ তৈরি হয় শাহরুখের।  দিব্যা ভারতী এমন একজন অভিনেত্রী ছিলেন যিনি খুব অল্প সময়ের মধ্যে জনপ্রিয়তা পেয়েছিলেন।

মাত্র ১৬ বছর বয়সে তামিল সিনেমা ববি রাজায় কাজ করেন। এরপর তিনি আর পেছন ফিরে তাকাননি। সেই সময় শোলা অর শাবনাম, দিল আসান হে, দিওয়ানার মতো সুপারহিট সিনেমার মাধ্যমে সফলতা পেয়েছেন। কিন্তু মাত্র ১৯ বছর বয়সে রহস্যময়ভাবে তাঁর মৃত্যু হয়।  ৫ এপ্রিল, ১৯৯৩ সালের রাতটি ছিল দিব্যা ভারতীর শেষ রাত। দিব্যার মৃত্যু মুম্বাইয়ের বারসোভার পাঁচ তলা বিল্ডিং থেকে পড়ে যাওয়ার ফলে হয়। কয়েকজন মনে করেন এটা আত্মহত্যা। আবার অনেকের মতে ষড়যন্ত্র করে তাকে মেরে ফেলা হয়েছে। তবে মুম্বাই পুলিশ এই ক্ষেত্রে প্রমাণ সংগ্রহ করতে সফল হননি। ১৯৯৮ সালে এই মামলা বন্ধ করে দেওয়া হয়। আজ ২৫ হলো কিনারা হয়নি এই মৃত্যুর।

যারা পুরো বিষয়টিকে ষড়যন্ত্র হিসেবে দেখেছিলেন তাদের মতে স্বামী সাজিদ নাদিয়াদওয়ালার ওপর আঙুল তুলেছিল। আন্ডারওয়াল্ডের সাথে মামলাটি জুড়ে দেখা হচ্ছিল। যদিও অন্য তত্ত্ব হলো সাজিদ নাদিয়াদওয়ালার সাথে দিব্যার সম্পর্ক এবং ফিল্মে অপ্রত্যাশিত সাফল্য তাঁকে তাঁর মা-বাবার থেকে দূরে নিয়ে গিয়েছিল। এই কারণে তিনি হতাশ হয়ে আত্মহত্যা করে নেন। দিব্যা ভারতীর মৃত্যুর বিষয়টি এখনও রহস্য। দিব্যার স্বামী সাজিদের নাম ফের আরেকটি মৃত্যুর সুঙ্গে জড়ালো।  সুশান্ত সিং রাজপুতের মৃত্যুর সাথে করণ জোহর, সালমান খান, আদিত্য চোপড়া, একতা কাপুরের পর যুক্ত হয়েছে সেই সাজিদের নাম। সাজিদ  নাদিয়াদওয়ালা। কেন এই নামটি বারবার আসছে? জীবিত অবস্থায় ২০১৯-এ সুশান্তের শেষ ছবি মুক্তি পেয়েছে 'ছিছোড়ে'। সেটি শুধু সুশান্তের ক্যারিয়ারের অন্যতম হিট ছবিই না, সিনেমাটিও দর্শকের মনে বিশেষ ভাবে প্রভাব ফেলেছে এবং ভালোবাসা পেয়েছে। ২০১৯-এর সবচেয়ে প্রিয় ছবির মধ্যে অন্যতম ছিল এটি। এই ছবির প্রযোজক সাজিদ নাদিয়াওয়ালা সুশান্তের সঙ্গে তাঁর আরও একটি নতুন ছবির কথা বলে ফেলেছিলেন। নতুন ছবির জন্য সাইনিং অ্যামাউন্টও দেওয়া হয়ে গিয়েছিল সুশান্তকে। বলিউড অভিনেতা, লেখক কামাল আর খানের ভাষ্যমতে সাজিদ সুশান্তকে পরে ব্যান করেছিলেন। যার ফলেই বলিউডে 'নেপোটিজম' শব্দটি জোড়ালোভাবেই নিয়ে আসেন কঙ্গনা রানাউত। 

দিব্যা ভারতীর মৃত্যুর যে রাতে এই ঘটনা হয়েছিল সেই দিন দিব্যা ভারতী নিজের জন্য একটি ফ্ল্যাট কিনেছিলেন। একদিন আগে, তিনি চেন্নাই থেকে শুটিং শেষ করে ফিরে আসেন। কিন্তু ফ্ল্যাট কেনার কারণে সেইদিন শ্যুটিং বাতিল করে দেন। এটাও বলা হয় যে পায়ের চোটের কারণে তিনি শুটিং করেননি। রিপোর্ট অনুযায়ী সেই দিন দিব্যা ভারতী ডিজাইনার নীতা লুল্লা এবং তার স্বামীর সাথে ভার্সোভার ফ্লাটে সাক্ষাত্ করতেন। নীতা লুল্লা তার স্বামীর সাথে রাত ১০টায় দিব্যার ফ্ল্যাটে পৌছান। নীতা বসার ঘরে বসে ছিলেন এবং কথা বলছিলেন। তখন দিব্যা রান্নাঘরে চলে যান। সেই সময় নিতা এবং তার স্বামী টিভিতে একটি ভিডিও দেখতে ব্যস্ত হয়ে যান। দিব্যার বসার ঘরে কোনও বারান্দা ছিল না। শুধুমাত্র একটি বড় জানালা ছিল। দুর্ভাগ্যবশত এই জানলাতে কোনও গ্রিল ছিল না এবং নীচে গাড়ি পার্কিং এর জায়গা ছিল। বলা হয় যে রান্নাঘর থকে আসার পর দিব্যা সেই জানালার পাতলা দেওয়ালের ওপর বসে পড়েন।

সম্পূর্ণ আর্টিকেলটি পড়ুন

প্রতিদিন ৩৫০০+ সংবাদ পড়ুন প্রিয়-তে

এই সম্পর্কিত

আরও