কুইক লিঙ্ক : মুজিব বর্ষ | করোনা ম্যাপ | করোনা ভাইরাসের প্রাদুর্ভাব

"প্রসূতি মায়ের রক্তে ভিজে গিয়েছিলো আমার ইউনিফর্ম !"

সময় টিভি প্রকাশিত: ২৮ এপ্রিল ২০২০, ২৩:৫০

প্রসব বেদনায় কাতরাচ্ছিলেন শিল্পীরানী দাস। দীর্ঘক্ষণ রক্তক্ষরণ হলেও সন্তান প্রসব হচ্ছিল না। অবস্থা দ্রুতই খারাপের দিকে যাচ্ছিলো। গভীর রাতে স্ত্রীকে নিয়ে কি করবেন ভেবে দিশেহারা হয়ে পড়েছিলেন রঞ্জিত দাস। অ্যাম্বুলেন্সের ফোন নম্বর ছিলো না। আর তাই হাসপাতালে নেয়ার জন্য পরিচিত কয়েকজন সিএনজি চালককে ফোন করেছিলেন। কিন্তু করোনার ভয়ে আর যেখানেই হোক হাসপাতালে যেতে কোনোভাবেই রাজি নন তারা। এদিকে শিল্পীরানীর দিকে তাকানো যাচ্ছে না। এমন অবস্থায় স্থানীয় উপজেলা চেয়ারম্যানের ছেলে রাজুর কাছ থেকে নন্বর নিয়ে শ্রীমঙ্গল র‍্যাব-১১ এর ক্যাম্প কমান্ডার এএসপি আনোয়ার হোসেনকে ফোন করেন নির্মল নামে একজন। আনোয়ার হোসেন জানান, গত রোববার দিবাগত রাতে তিনি টহল ডিউটিতে ছিলেন। এ সময় তার কাছে একটা ফোন আসে। ফোন করে তাকে নির্মল নামে একজন বলেন, তার পিসি সন্তান সম্ভবা। তার প্রসব বেদনা হচ্ছে, পানি ভাঙছে, কিন্তু দীর্ঘ সময় ধরে বাচ্চা প্রসব হচ্ছে না। তাকে জরুরি ভিত্তিতে হাসপাতালে নেয়া দরকার। কিন্তু মৌলভীবাজার জেলা যেহেতু লকডাউন তাই তারা কোনো গাড়ি পাচ্ছে না। তিনি বলেন, তারা আমার কাছে সহযোগিতা চাইলেন। ওই সময় রাত প্রায় ১২টার কাছাকাছি। ভাবলাম যেহেতু আমি টহলে আছি তাই যদি ওই নারীকে নিয়ে আসি তাহলেও টহল হচ্ছেই। র‍্যাবের গাড়ি দেখলেও তো মানুষ নিরাপদ বোধ করে। আমি তাদের কাছে লোকেশন জানতে চাইলাম। এটি ছিলো শ্রীমঙ্গলের দক্ষিণে উত্তর সুর নামক একটি গ্রাম। সেখানে গিয়ে দেখলাম ওই প্রসূতির খুবই সংকটাপন্ন অবস্থা। তাকে দ্রুত শ্রীমঙ্গল উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নিয়ে গেলাম।

প্রতিদিন ৩৫০০+ সংবাদ পড়ুন প্রিয়-তে

এই সম্পর্কিত

আরও