মিয়ানমারের সেনাবাহিনীর অব্যাহত নির্যাতনের মুখে বাংলাদেশে পালিয়ে আসছে রোহিঙ্গারা। ছবি: ফোকাস বাংলা

মানবতাবিরোধী অপরাধ করছে মিয়ানমারের সেনাবাহিনী: হিউম্যান রাইটস ওয়াচ

সেনাবাহিনী রাখাইনের অধিবাসী রোহিঙ্গাদের নিজ আবাসস্থল থেকে তাড়িয়ে দেওয়া, খুন করা, ধর্ষণ-নিপীড়ন চালিয়ে যাচ্ছে। যার কারণে প্রচুর পরিমাণে প্রাণক্ষয় হচ্ছে এবং পালিয়ে যাওয়ার সংখ্যা বাড়ছে।

হাসান আদিল
সহ-সম্পাদক
প্রকাশিত: ২৬ সেপ্টেম্বর ২০১৭, ২২:০০ আপডেট: ১৯ আগস্ট ২০১৮, ২০:০০
প্রকাশিত: ২৬ সেপ্টেম্বর ২০১৭, ২২:০০ আপডেট: ১৯ আগস্ট ২০১৮, ২০:০০


মিয়ানমারের সেনাবাহিনীর অব্যাহত নির্যাতনের মুখে বাংলাদেশে পালিয়ে আসছে রোহিঙ্গারা। ছবি: ফোকাস বাংলা

(প্রিয়.কম) রাখাইন রাজ্যে রোহিঙ্গা জনগোষ্ঠীর বিরুদ্ধে মিয়ানমারের সেনাবাহিনী মানবতাবিরোধী অপরাধ করছে বলে অভিযোগ করেছে নিউইয়র্ক ভিত্তিক মানবাধিকার সংগঠন হিউম্যান রাইট ওয়াচ।

২৬ সেপ্টেম্বর মঙ্গলবার সংস্থাটির ওয়েবসাইটে প্রকাশ করা এক প্রতিবেদনে এ অভিযোগ করে সংস্থাটি। 

প্রতিবেদনে বলা হয়, মিয়ানমারের সেনাবাহিনী রাখাইন রাজ্যের অধিবাসী রোহিঙ্গাদের নিজ আবাসস্থল থেকে তাড়িয়ে দেওয়া, খুন করা, ধর্ষণ-নিপীড়ন চালিয়ে যাচ্ছে। যার পরিপ্রেক্ষিতে প্রচুর পরিমাণে প্রাণক্ষয়ের পাশাপাশি দেশ থেকে পালিয়ে যাওয়ার সংখ্যাও আশঙ্কাজনক হারে বাড়ছে। 

এমন গর্হিত কাজের রাশ টেনে ধরতে জাতিসংঘের নিরাপত্তা পরিষদকে দেশটির ওপর সুনির্দিষ্ট ক্ষেত্রে এবং অস্ত্র বিক্রিতে দেশটির সঙ্গে সংশ্লিষ্ট দেশগুলোকে সেনাবাহিনীর ওপর অস্ত্র নিষেধাজ্ঞা আরোপের আহ্বান জানানো হয় সংস্থাটির পক্ষ থেকে। এর কারণ হিসেবে সংস্থাটি বলছে, ‘তারা যেন আরও মানবতাবিরোধী অপরাধ সংগঠিত করতে না পারে।’

সঙ্কট সমাধানের পাশাপাশি মানবিক দিক বিবেচনায় রাখাইনে সাহায্য সংস্থাগুলোকে প্রবেশ করতে দেওয়া, জাতিসংঘের পক্ষ থেকে ঘটনা তদন্তের জন্য সুযোগ করে দেওয়ার পাশাপাশি দোষীদের বিচারের মুখোমুখি করার আহ্বান জানানো হয়েছে সংস্থাটির পক্ষ থেকে।

হিউম্যান রাইটস ওয়াচের আইন ও নীতিমালা বিষয়ক পরিচালক জেমস রস বলেন, ‘বার্মার সেনাবাহিনী নির্মমভাবে রোহিঙ্গাদের রাখাইন প্রদেশ থেকে বের করে দিচ্ছে। গ্রামবাসীদের ওপর গণহত্যা এবং গণহারে অগ্নিসংযোগ, লোকজনকে বাড়িঘর থেকে তাড়িয়ে দিচ্ছে। যার সবগুলোই মানবতার বিরুদ্ধে অপরাধ।’

এর আগে স্যাটেলাইট থেকে পাওয়া ছবি বিশ্লেষণের মাধ্যমে সংস্থাটি জানিয়েছিলো রাখাইনে রোহিঙ্গা অধ্যুষিত প্রায় ২১৪টি গ্রাম পুরোপুরি ধ্বংস হয়ে গেছে।

উল্লেখ্য, ২৪ আগস্ট রাতে আরাকান রোহিঙ্গা সালভেশন আর্মি (আরসা) কর্তৃক প্রায় ৩০ পুলিশ পোস্টে একসঙ্গে হামলার ঘটনায় রোহিঙ্গাদের বিরুদ্ধে মিয়ানমারের সেনাবাহিনী অভিযানে নামে। এরপর থেকে মিয়ানমারের সেনাবাহিনী গণহত্যা, লুট, ধর্ষণ, ঘরবাড়িতে আগুন দেয়া, গ্রামবাসীদের তাড়িয়ে দিতে শুরু করে। যার পরিপ্রেক্ষিতে বাংলাদেশে পালিয়ে এসেছে প্রায় ৪ লাখ ৮০ হাজার রোহিঙ্গা। সংস্থাটি বলছে, ২০১২ সাল থেকে মিয়ানমারের সেনাবাহিনী রোহিঙ্গাদের বিরুদ্ধে মানবতাবিরোধী অপরাধ করেই যাচ্ছে। 

সূত্র: হিউম্যান রাইট ওয়াচ

প্রিয় সংবাদ/শান্ত  

পাঠকের মন্তব্য(০)

মন্তব্য করতে করুন


আরো পড়ুন

loading ...