বইটির মোড়ক উন্মোচনে অনলাইনে যোগ দেন কথাসাহিত্যিক সেলিনা হোসেন।

অধ্যাপক সাজ্জাদ হোসেনের ‘অদম্য বাংলাদেশ’ বইটি নতুন প্রজন্মকে তৈরি করার ক্ষেত্র: সেলিনা হোসেন

বইটির বিভিন্ন প্রবন্ধের কথা উল্লেখ করে অন্যান্য বইয়ের তুলনায় সেগুলোর স্বতন্ত্র বৈশিষ্ট্যগুলো তুলে ধরেন কথাসাহিত্যিক সেলিনা হোসেন।

প্রিয় ডেস্ক
ডেস্ক রিপোর্ট
প্রকাশিত: ১২ অক্টোবর ২০২০, ২০:২৫ আপডেট: ১২ অক্টোবর ২০২০, ২০:৫৭
প্রকাশিত: ১২ অক্টোবর ২০২০, ২০:২৫ আপডেট: ১২ অক্টোবর ২০২০, ২০:৫৭


বইটির মোড়ক উন্মোচনে অনলাইনে যোগ দেন কথাসাহিত্যিক সেলিনা হোসেন।

বাংলাদেশ বিশ্ববিদ্যালয় মঞ্জুরি কমিশনের (ইউজিসি) সদস্য ও তথ্যপ্রযুক্তিবিদ অধ্যাপক ড. মো. সাজ্জাদ হোসেনের ‘অদম্য বাংলাদেশ’ শীর্ষক বইয়ের মোড়ক উম্মোচন করা হয়েছে। এ সময় কথাসাহিত্যাক সেলিনা হোসেন বইটি সম্পর্কে বলেন, এটি একটি চমৎকার চিন্তার বই। চিন্তা এবং মননশীলতার ভেতর থেকে উঠে এসছে লেখকের বিশ্লষণ এবং গবেষণাধর্মী কাজ। সেসব জায়গা থেকে আমরা যদি দেখি, তাহলে আমি মনে করি অনেকগুলো প্রবন্ধ আছে, যেগুলো এই সময়ের জন্য অত্যন্ত জরুরি। 

বইটির বিভিন্ন প্রবন্ধের কথা উল্লেখ করে অন্যান্য বইয়ের তুলনায় সেগুলোর স্বতন্ত্র বৈশিষ্ট্যগুলো তুলে ধরেন সেলিনা হোসেন। উদাহরণ হিসেবে তিনি ‘দুর্যোগ মোকাবেলায় অনলাইন শিক্ষা ও গবেষণা: বৈশ্বিক প্রেক্ষাপট’, ‘একটি হেলথ টেলিভিশন চ্যানেলের প্রয়োজনীয়তা: বাংলাদেশ প্রেক্ষাপট’ ও ‘বঙ্গবন্ধু প্রযুক্তি নির্ভর আধুনিক বাংলাদেশের স্বপ্নদ্রষ্টা’ নামে বইটির কয়েকটি প্রবন্ধের নাম উল্লেখ করেন।

সেলিনা হোসেন বলেন, এসব জরুরি কাজগুলো যারা বিভিন্ন জায়গায় দক্ষতার সঙ্গে পরিচালনা করবেন, তারা বইটি থেকে তথ্য নিয়ে উপকৃত হতে পারবেন। লেখিকা হেলথ টেলিভিশনের প্রয়োজনীয়তা শীর্থক প্রবন্ধটির দিকে বিশেষভাবে দৃষ্টি আকর্ষণ করে বলেন, ‘এমন একটি টেলিভিশন চ্যানেলে চালু হলে হয়তো আমাদের গণমানুষের সুচিকিৎসার জায়গাটা তৈরি হবে।’

তিনি বলেন ‘এই বইটি আমাদের সামনে পাঠ্যপুস্তকের মতো শিক্ষার জায়গা। আমি মনে করি এই বইটিকে সামনে এগিয়ে রেখে আমাদের নতুন প্রজন্মকে এটি পড়িয়ে, তাদেরকে নানা কিছু বুঝিয়ে তৈরি করার একটা ক্ষেত্র।’

দুর্যোগ মোকাবেলায় অনলাইন শিক্ষা ও গবেষণা বিষয়ক প্রবন্ধের কথা উল্লেখ করে সেলিনা হোসেন বলেন, ‘এটা আমাদের দেশের জন্য অত্যন্ত জরুরি, কারণ আমরা ঘন ঘন দুর্যোগের শিকার হই, দুর্যোগ মোকাবেলা করার জন্য আমাদের গণমানুষের নানা কিছু বঞ্চনার জায়গা তৈরি হয় এবং আমরা সেই জায়গুলো পূরণ করার জন্য সবসময় পেরে উঠি, একথা দৃঢ়ভাবে বলা যায় না।’

সমাজের গরীব মানুষের ‍সুস্থতার প্রয়োজনে এটি অত্যন্ত জরুরি পদক্ষেপ হতে পারে বলেও মনে করেন তিনি। 

বইয়ে অপ্রতিরোধ্য গতিতে এগিয়ে চলা বাংলাদেশের উন্নয়ন অগ্রযাত্রা, প্রযুক্তিগত উন্নয়ন এবং আগামীর সম্ভাবনা নিয়ে ২৪টি নিবন্ধ রয়েছে। ১২৬ পৃষ্ঠার ‘অদম্য বাংলাদেশ’ বইটি প্রকাশ করেছে প্রথম পালক। এর প্রচ্ছদ পরিকল্পনা ও শিল্প নির্দেশনা দিয়েছেন এন কে কায়কোবাদ রানা এবং অলংকরণ করেছেন মামুন হোসাইন। এর মূল্য ধরা হয়েছে ২৯০ টাকা। জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের জন্মশতবর্ষে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার জন্মদিন উপলক্ষে বইটি উৎসর্গ করা হয়েছে।

৩০ সেপ্টেম্বর ভার্চুয়াল প্ল্যাটফর্মে বইটির মোড়ক উম্মোচন অনুষ্ঠানে আরও উপস্থিত ছিলেন জাতীয় সংসদের স্পিকার ড. শিরীন শারমীন চৌধুরী, শিক্ষামন্ত্রী ডা. দীপু মনি,  ডাক ও টেলিযোগাযোগ বিভাগের মন্ত্রী মোস্তাফা জব্বার, তথ্য ও যোগাযোগ প্রযুক্তি বিভাগের প্রতিমন্ত্রী জুনাইদ আহমেদ পলক, জাতীয় অধ্যাপক ড. রফিকুল ইসলামসহ আরও অনেকে। 

উল্লেখ্য, তথ্য প্রযুক্তিবিদ ড. সাজ্জাদ হোসেন বাংলাদেশ স্যাটেলাইট কোম্পানি লিমিটেডের পরিচালক হিসেবেও দায়িত্ব পালন করছেন। দেশের বিজ্ঞান ও তথ্য প্রযুক্তি শিক্ষায় তিনি গুরুত্বপূর্ণ অবদান রেখে চলেছেন। শিক্ষার্থীদের জন্য তাঁর ‘প্রোগ্রামিং ইন সি’ শীর্ষক বইটি ইতোমধ্যে বেশ জনপ্রিয়তা পেয়েছে। এ ছাড়া তথ্য প্রযুক্তি বিষয়ে প্রাঞ্জল ভাষায় লেখা ‘অদৃশ্য প্রযুক্তি’ বইটিও পাঠকপ্রিয়তা অর্জন করেছে।

পাঠকের মন্তব্য(০)

মন্তব্য করতে করুন


আরো পড়ুন

loading ...