সৌদি বাদশাহ সালমান বিন আব্দুল আজিজের সঙ্গে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার বৈঠক। ছবি: ফোকাস বাংলা

হাসিনা সরকারের ধারাবাহিকতায় গুরুত্বারোপ সৌদি বাদশাহর

সৌদি বাদশাহ বলেছেন, ধারাবাহিকতা বজায় থাকলে বাংলাদেশ ও সৌদি আরবের মধ্যে দ্বিপাক্ষিক সম্পর্ক আরও শক্তিশালী হবে।

আয়েশা সিদ্দিকা শিরিন
সহ-সম্পাদক
প্রকাশিত: ১৮ অক্টোবর ২০১৮, ০৯:৫৬ আপডেট: ১৮ অক্টোবর ২০১৮, ০৯:৫৬
প্রকাশিত: ১৮ অক্টোবর ২০১৮, ০৯:৫৬ আপডেট: ১৮ অক্টোবর ২০১৮, ০৯:৫৬


সৌদি বাদশাহ সালমান বিন আব্দুল আজিজের সঙ্গে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার বৈঠক। ছবি: ফোকাস বাংলা

(প্রিয়.কম) শেখ হাসিনার নেতৃত্বে বাংলাদেশের অসাধারণ উন্নয়নের প্রশংসা করেছেন সৌদি বাদশাহ সালমান বিন আব্দুল আজিজ আল সৌদ। তিনি বর্তমান সরকারের ধারাবাহিকতার প্রয়োজনীয়তার ওপর গুরুত্ব আরোপ করেছেন।

১৭ অক্টোবর, বুধবার বিকেলে (স্থানীয় সময়) রিয়াদে প্রধানমন্ত্রীর সঙ্গে সৌদি বাদশাহর বৈঠকের পর সাংবাদিকদের ব্রিফিংকালে পররাষ্ট্রসচিব মো. শহীদুল হক এসব কথা জানান বলে ইউএনবির খবরে বলা হয়েছে।

সৌদি বাদশাহর আমন্ত্রণে চার দিনের সফরে মঙ্গলবার সন্ধ্যায় সৌদি আরবে পৌঁছান শেখ হাসিনা। বুধবার বিকেলে সৌদি আরবের আরগায়ে রাজপ্রাসাদে সৌদি বাদশাহর সঙ্গে সাক্ষাৎ করেন প্রধানমন্ত্রী। সে সময় একটি বৈঠক অনুষ্ঠিত হয়। বৈঠক শেষে মধ্যাহ্ন ভোজের আয়োজন করা হয়।

পররাষ্ট্রসচিব বলেন, ‘সৌদি বাদশাহ বার বার বলেছেন বাংলাদেশ যে অসামান্য উন্নয়ন অর্জন করেছে তার ধারাবাহিকতা বজায় রাখতে হবে। এখানে ধারাবাহিকতা মানে প্রধানমন্ত্রীর ধারাবাহিকতা।’

‘দুই পবিত্র মসজিদের হেফাজতকারী সালমান বিন আব্দুল আজিজ আল সৌদ বলেছেন ধারাবাহিকতা বজায় থাকলে বাংলাদেশ ও সৌদি আরবের মধ্যে দ্বিপাক্ষিক সম্পর্ক আরও শক্তিশালী হবে।’

মো. শহীদুল হক জানান, আন্তরিক ও উষ্ণ পরিবেশের মধ্যে বৈঠকটি অনুষ্ঠিত হয়েছে। প্রধানমন্ত্রীকে স্বাগত জানানোর জন্য সৌদি প্রাসাদের প্রবেশদ্বারে বাদশাহ নিজে এসেছিলেন। সে সময় সৌদি বাদশাহ প্রধানমন্ত্রীকে বলেন, ‘এটি আপনার ঘর এবং এখানে আপনাকে সব সময় স্বাগতম।’

সৌদি রাজপ্রাসাদের প্রবেশদ্বারে প্রধানমন্ত্রীকে স্বাগত জানান বাদশাহ সালমান বিন আব্দুল আজিজ।
সৌদি রাজপ্রাসাদের প্রবেশদ্বারে প্রধানমন্ত্রীকে স্বাগত জানান বাদশাহ সালমান বিন আব্দুল আজিজ। ছবি: ফোকাস বাংলা

পররাষ্ট্রসচিব আরও জানান, বিশাল মধ্যাহ্ন ভোজের আয়োজন করা হয়েছিল এবং প্রধানমন্ত্রীর সঙ্গে কথা বলার সময় সৌদি বাদশাহকে খুব আন্তরিক দেখা গেছে। তিনি দুই দেশের মধ্যকার অর্থনৈতিক ও সাংস্কৃতিকসহ বিভিন্ন ক্ষেত্রে সহযোগিতা বাড়ানোর প্রয়োজনীয়তার উপর জোর দেন।

ফিলিস্তিনিদের অধিকার প্রতিষ্ঠায় বাংলাদেশের ভূমিকার প্রশংসা করেছেন সৌদি বাদশাহ। তার উদ্ধৃতি দিয়ে পররাষ্ট্র সচিব বলেন, ‘বাংলাদেশের অবস্থান খুব সম্মানজনক।’

আন্তরিক আতিথেয়তার জন্য সৌদি বাদশাহকে ধন্যবাদ জানান প্রধানমন্ত্রী। তিনি সৌদি আরবে অবস্থানরত বাংলাদেশি শ্রমিকদের সমস্যা নিয়ে বাদশাহর মনোযোগ আকর্ষণ করেন। সে সময় বাদশাহ বলেন, ‘সৌদির আর্থ-সামাজিক উন্নয়নে প্রবাসী বাংলাদেশিরা বিরাট অবদান রাখছে, তাদের দেখভাল করা আমার দায়িত্ব।’

শহীদুল হক আরও বলেন, ‘বাংলাদেশে আসতে সৌদি বাদশাহকে আমন্ত্রণ জানান প্রধানমন্ত্রী এবং তিনি তা গ্রহণ করেন।’

প্রিয় সংবাদ/রুহুল

পাঠকের মন্তব্য(০)

মন্তব্য করতে করুন


আরো পড়ুন

loading ...